শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
৩৬ বছর পর বিশ্বকাপের নকআউটে মরক্কো ২৪ বছর পর গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় বেলজিয়ামের গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে সরকার বেসামাল হয়ে গেছে : রিজভী বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম নির্ধারণ করতে পারবে সরকার আমাদের ও আওয়ামী লীগের মাঝখানে আসবেন না: সালাম ইসলামি ব্যাংক থেকে মালিকপক্ষের ৩০ হাজার কোটি টাকা ঋণ পোশাক রপ্তানিতে আবারো দ্বিতীয় স্থানে বাংলাদেশ ডেঙ্গুতে মৃত্যুহীন দিনে ৩৮০ জন হাসপাতালে ভর্তি আশার আলো দেখাচ্ছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স দেশের কথা না ভেবে সরকার বিদেশে অর্থ পাচার করছে: ড. কামাল ডিসেম্বরকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস ঘোষণার দাবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পুলিশ প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে যা জানালেন বিএনপি নেতারা ডিএমপির ছয় কর্মকর্তা বদলি শুরু হলো সারাদেশে পুলিশের বিশেষ অভিযান করোনা টিকাদানের বিশেষ কর্মসূচি শুরু

অনলাইনে হয়রানি বাড়ছেই

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : নভেম্বর ২০, ২০২২
অনলাইনে হয়রানি বাড়ছেই

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে ঘিরে বাড়ছে প্রতারণার ঘটনা। ব্ল্যাকমেইল করে কৌশলে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে হ্যাকাররা। পরিসংখ্যান বলছে, ইন্টারনেটে এমন ভুক্তভোগীদের মধ্যে গেলো ১ বছরে অন্তত ৫১ শতাংশ নানাভাবে সাইবার বুলিংয়ের শিকার। গবেষণা বলছে, আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর দ্বারস্থ হয়ে প্রত্যাশা অনুযায়ী ফল পাননি ৫৫ শতাংশের বেশি। তবে অভিযোগ পেলে পদপেক্ষের কথা বলছে পুলিশের সাইবার বিভাগ।

কলেজ শিক্ষার্থী সুমাইয়া, সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে পরিচিত একজনের পাঠানো লিংকে ক্লিক করতেই হারান নিজের আইডি। নিয়ন্ত্রণ চলে যায় হ্যাকারদে কাছে। তারই আইডি থেকে শুরু হয় নানাভাবে ব্ল্যাকমেইল করা।

স্মার্টফোন ব্যবহারকারী বিভিন্ন বয়স ও শ্রেণি-পেশার মানুষকেই কোন না কোনসময় পড়তে হচ্ছে এ ধরনের পরিস্থিতিতে৷ অনেকেই খোয়াচ্ছেন অর্থ, হারাচ্ছেন সামাজিক মর্যাদা।

সাইবার ক্রাইম অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশনের গবেষণা বলছে, নেট দুনিয়ায় বিভিন্নভাবে হয়রানিতে পড়া ভুক্তভোগীদের অন্তত ৫১ শতাংশই সাইবার বুলিং এর শিকার । তথ্য হাতিয়ে নেয়া, পর্ণোগ্রাফি, বিকৃত ছবি ও মিথ্যা তথ্য ছড়ানোর অভিযোগ সবচেয়ে বেশি। ইন্টারনেটে ওঁৎ পেতে থাকা হ্যাকারদের প্রতিরোধে নিরাপত্তা সেটিংসে জোর দিচ্ছেন আইটি বিশেষজ্ঞরা।

গবেষণার তথ্য বলছে, এ ধরনের ঘটনায় ভুক্তভোগীদের মধ্যে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর দ্বারস্থ হয়ে প্রত্যাশিত ফল পেয়েছেন মাত্র ৭ শতাংশ, আর প্রত্যাশা অনুযায়ী ফল পাননি ৫৫ শতাংশের বেশি। তবে পুলিশের দাবি, প্রতারণার শিকার বেশিরভাগই আসেন না অভিযোগ জানাতে।

সাইবার ক্রাইম অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশনের ২০২২ এর গবেষণা তথ্যমতে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হ্যাকিং ২৪ শতাংশ, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার ১৯ শতাংশ, পর্নোগ্রাফি ও ছবি বিকৃত করে প্রচার ১০ শতাংশ, পণ্য কিনতে গিয়ে প্রতারণার শিকার ১৫ শতাংশ, অনলাইনে মেসেজ পাঠিয়ে হুমকি – ১১ শতাংশ, কপিরাইট আইনের লঙ্ঘন ৫ শতাংশ, আইডি নিষ্ক্রিয় করা ও ভুয়া আইডি তৈরি ২ শতাংশ, অনলাইনে কাজ দেয়ার নামে প্রতারণা ২ শতাংশ।

সরকারি হিসেবে দেশে বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছেন প্রায় ১৩ কোটি। যাদের অনেকেই প্রযুক্তি নিরাপত্তায় অদক্ষ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ