মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৫৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পঞ্চগড়ে মন্দিরগামীদের নিয়ে নৌকাডুবি, ২৪ জনের লাশ উদ্ধার, অনেকেই নিখোঁজ ডিএনসিসি মেয়র, ওয়াসা এমডিকে কারাগারে পাঠাতে চান নদী কমিশন চেয়ারম্যান নতুন মূল্য নির্ধারণ: পাম অয়েলে কমলো ১২ টাকা, চিনিতে ৬ টাকা বেনজীরের বিদায়, পুলিশের নতুন আইজি মামুন, র‌্যাবের ডিজি খুরশীদ ডলারে অতিরিক্ত মুনাফার অভিযোগ থেকে মুক্ত ছয় ব্যাংকের ট্রেজারি কর্তারা শত অনিয়মের আখড়া ছিল ই-ভ্যালি, ছিলনা আয়-ব্যয়ের হিসাব ১৬ কোটি মানুষের কাছে কৃতজ্ঞতা সাফজয়ী অধিনায়ক সাবিনার ল্যাব থাকলেও টেস্ট ছাড়াই হালাল সনদ দেয় ইসলামিক ফাউন্ডেশন ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ও সোনার বাংলা ক্যাপিটাল’র আমানত-দায় শেয়ারে রূপান্তর, চুক্তি সকল শক্তি দিয়েও নদী দখলকারীদের উচ্ছেদ করা যাচ্ছেনা: টুকু হংকংকে হারিয়ে সুপার ফোর নিশ্চিত করল ভারত প্রধানমন্ত্রীকে হত্যা ষড়যন্ত্রে সরকারি দলের লোকজন জড়িত হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া বিএনপি-জামাতের সম্পর্ক ভেতরে অটুট: কাদের দেশে জ্বালানি তেলের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

অবহেলায় রংপুরের মিঠাপুকুর ইকোপার্ক

রংপুর সংবাদদাতা
আপডেট : আগস্ট ২৮, ২০২২
অবহেলায় রংপুরের মিঠাপুকুর ইকোপার্ক

অবহেলায় পরে আছে রংপুরের একমাত্র প্রাকৃতিক শালবন মিঠাপুকুর ইকোপার্ক। উদ্বোধনের নয় বছর পেরিয়ে গেলেও পূর্ণরূপ পায়নি ইকোপার্কটি। সীমানা প্রাচীর নির্মিত হয়েছে অর্ধেক, নেই বন সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পার্কের ভেতরের রাস্তাটি অপরিচ্ছন্ন হওয়ায় চলাচলের উপায় নেই দর্শনার্থীদের। এসব দেখে হতাশ দর্শণার্থীরা।

২২৬ একর জায়গা নিয়ে গড়ে ওঠা রংপুরের একমাত্র শালবন মিঠাপুকুর ইকোপার্ক। ২০১৩ সালে দর্শনার্থীদের জন্য এটি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। কিন্তু নয় বছরেও দর্শনার্থীদের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে পারেনি বন বিভাগ।

দর্শনার্থীদের অভিযোগ, এখনো পুরো পার্কটির সীমানা প্রাচীর নির্মিত না হওয়া নিরাপত্তা ঝুঁকি রয়েছে। ধসে পড়ছে অফিস ভবন। দর্শনার্থীদের জন্য নেই বিশুদ্ধ পানি, টয়লেট ও পিকনিকের জন্য রান্না ও প্রয়োজনীয় অবকাঠামো ব্যবস্থা।

ইকোপার্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ১৫০ একরে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় জনবল ও অর্থের অভাবে বাকি কাজ শেষ হচ্ছে না। বরাদ্দ পেলে কাজ শুরু করা হবে।

জমি সংক্রান্ত জটিলতা নিয়ে মামলা চলমান থাকায় ইকো পার্কের কাজ পিছিয়ে আছে বলে জানালেন বিভাগীয় বন কর্মকতা মোঃ মতলবুর রহমান।

শিগগিরি এই জটিলতা কেটে যাবে এবং পার্কের সৌন্দর্যবর্ধনে কাজ শুরু করা সম্ভব হবে বলে জানালেন এই বন কর্মকর্তা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ