শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ডিসেম্বরেও উৎপাদনে যাচ্ছে না পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে দিল্লি, মুম্বাইসহ বেশ কিছু রাজ্য গাজার মানবিক অঞ্চলে বিমান হামলা, নিহত ৭১ গাজার ৭০ হাজারের বেশি মানুষ হেপাটাইটিসে আক্রান্ত নেপালে ১৬ বছরে ১৪ বার সরকার বদল? যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বকাপ আয়োজন করে কোটি টাকা খুইয়েছে আইসিসি ‘পদক নয়, নিজেদের উন্নতি করতে অলিম্পিকে যাচ্ছে বাংলাদেশ’ সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার : শিক্ষার্থীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা কোটা আন্দোলনে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি ভর করেছে: ওবায়দুল কাদের দেশে বদলে যাচ্ছে বন্যার ধরন গণতন্ত্রের জন্যও শিক্ষার্থীদের লড়াই করার আহ্বান আমির খসরুর সরকার পতনের আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে: মান্না কোটা সংস্কারের নামে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত স্বাধীনতাবিরোধীরা: আইনমন্ত্রী বাজারে সব পণ্যেই হাকিয়েছে সেঞ্চুরি

আওয়ামী লীগের দিনের বেলায় রাজনীতি করার সাহস নেই: গয়েশ্বর

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : আগস্ট ২৯, ২০২২
আওয়ামী লীগের দিনের বেলায় রাজনীতি করার সাহস নেই: গয়েশ্বর

প্রধানমন্ত্রী যা বলেন তা করেন না, আর যা করেন তা বলেন না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

সোমবার (২৯ আগস্ট) দুপুরে যশোরে সাম্প্রতিক সময়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর অব্যাহত রাজনৈতিক সহিংসতার পরিপ্রেক্ষিতে শহরের লালদীঘি পাড়ে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, প্রধানমন্ত্রী যা বলেন তা করেন না, আর যা করেন তা বলেন না। এটা এক ধরনের প্রতারণা। জনগণকে ধোঁকা দেয়া বলে। প্রশাসনের মধ্যে অতিউৎসাহী পুলিশ সদস্য আছে। যারা রাতের আঁধারে ভোট কাটতে অভ্যস্ত হয়ে গেছেন। হাসিনা সরকার টিকে থাকার চেয়ে তারা বেশি আতংকিত ভবিষ্যতে চাকরি থাকবে কিনা। এ কারণে বর্তমান সরকারের ক্ষমতায় থাকা নিয়ে যতটা না আগ্রহ, তার চেয়ে বেশি উৎসাহ তাদের (পুলিশ)। পুলিশের কাজ আইনশৃংখলা নিশ্চিত করা। দুষ্টের দমন, সৃষ্টের পালন করা পুলিশের কাজ। কিন্তু পুলিশ দুষ্টের কাজ করছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, আমরা আওয়ামী লীগকে মোকাবেলা করতে পারি। বাধা আসলে আমরা প্রতিরোধ করবো। আক্রমণ আসলে প্রতি আক্রমণ করবো। কিন্তু জনগনের রেভিনিউয়ের টাকা দিয়ে গুলি কিনে সরকারকে ঠেকানোর জন্য হাতিয়ার বাহিনী আছে। সেই হাতিয়ার বাহিনীকেও মোকাবেলায় প্রস্তুত আছি। ইতোমধ্যে আমাদের দুই ভাই ভোলায় শহীদ হয়েছেন এই হাতিয়ার বাহিনীর হাতে। এই সরকারের পতন নিশ্চিত করতে হলে রাজপথ রঞ্জিত হবে, এটা আমরা জানি। জেনেশুনেই আমরা এই আন্দোলনে শামিল হয়েছি। বিজয় নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগের দিনের বেলায় রাজনীতি করার সাহস নেই। দুর্বৃত্তের মত রাতের বেলায় বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে হামলা করছে। আওয়ামী লীগ দুর্বৃত্তের দল। তার পুলিশের উপর ভরসা করতে পারছেনা। এ জন্য দলের ক্যাডারদের মাঠে নামিয়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করছে।’

এর আগে যশোর শহরের লালদীঘি পাড়ে বিএনপির কার্যালয় ও দলের স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য প্রয়াত তরিকুল ইসলামসহ জেলার চার শীর্ষনেতাদের বাড়ি আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ কর্মীদের হামলা ও ভাংচুরের পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। এ সময় জেলা বিএনপি ও ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুণ্ড বলেন, খুলনা, যশোর, মাগুরায় বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালানো হয়েছে। রাজনৈতিক কর্মসূচি পণ্ড করা হচ্ছে। বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর হামলা বন্ধ না হলে খুলনা বিভাগ অচল করে দেয়া হবে।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ