সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
‘ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করেই দেশ এগিয়ে নিচ্ছি’ রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নবনিযুক্ত সেনাপ্রধানের সাক্ষাৎ র‍্যাঙ্ক ব্যাজ পরানো হয়েছে নবনিযুক্ত সেনাপ্রধানকে পুলিশ অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি দুর্নীতি উৎসাহিত করবে: ডিআরইউ মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান শুরু খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে এভার কেয়ারে রিজভী তিস্তা নদী বা যৌথ নদী ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করলেন ওয়াকার-উজ-জামান বেনজীর ও তার স্ত্রী-সন্তানের ১০ বিও হিসাব অবরুদ্ধ জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খালেদা জিয়া: মির্জা ফখরুল দোশের ১৪ জেলায় নতুন পুলিশ সুপার নিয়োগ সময় নিয়েও দুদকে হাজির হলেন না বেনজীর এনবিআর থেকে সরিয়ে দেওয়া হলো ছাগলকাণ্ডের মতিউরকে খালেদা জিয়ার হৃদযন্ত্রে পেস মেকার বসানোর কাজ চলছে: আইনমন্ত্রী নেতানিয়াহুর পদত্যাগের দাবিতে তেল আবিবে বিক্ষোভ

এক সপ্তাহে সব সূচকেই করোনা ঊর্ধ্বগামী: নতুন মৃত্যু ১৫, শনাক্ত ১৪,৮২৮

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জানুয়ারি ২৪, ২০২২

বৃত্তান্ত প্রতিবেদক: সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় এক লাফে করোনায় প্রায় চার হাজার নতুন রোগী বেড়েছে। আগের ২৪ ঘণ্টার তুলনায় বেড়েছে শনাক্তের হার ও মৃত্যু। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৪,৮২৮ জন।

এরআগে রবিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ১০,৯০৬ জন শনাক্তের কথা জানিয়েছিল অধিদফতর। একদিনের ব্যবধানে নতুন শনাক্ত রোগী বেড়েছে ৩,৯২২ জন।

প্রায় সাড়ে ৫ মাস পর শনাক্ত ১৫ হাজারের কাছাকাছি। এর আগে গত ৩ আগস্ট ১৫ হাজার ৭৭৬ জন রোগী শনাক্ত হন।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে সব সূচকে করোনার ঊর্ধ্বগামী (নমুনা পরীক্ষা, শনাক্ত, মৃত্যু এবং সুস্থতা) প্রবণতা অব্যাহত রয়েছে।

চলতি বছরের ইপিডেমিওলজিক্যাল দ্বিতীয় সপ্তাহের (১০-১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত) তুলনায় তৃতীয় সপ্তাহে (১৭-২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত) নমুনা পরীক্ষা ৩৪ দশমিক ৭ শতাংশ, শনাক্ত ১৮০ দশমিক ৮ শতাংশ, সুস্থতা ৯৯ দশমিক ৬ শতাংশ এবং মৃত্যু ৮৮ দশমিক এক শতাংশ বেড়েছে।

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ইপিডেমিওলজিক্যাল দ্বিতীয় সপ্তাহে সর্বমোট ১ লাখ ৮৯ হাজার ৬৩০টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৪ হাজার ১১ জন রোগী শনাক্ত হয়। একই সময়ে ১ হাজার ৯৮৮ জন সুস্থ এবং ৪২ জনের মৃত্যু হয়। ইপিডেমিওলজিক্যাল তৃতীয় সপ্তাহে ২ লাখ ৫৫ হাজার ৪৫৫ টি নমুনা পরীক্ষায় ৬৭ হাজার ৪২৫ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়। একই সময়ে সুস্থ হন ৩ হাজার ৯৬৮ জন। এ সময়ে সর্বমোট ৭৯ জন রোগীর মৃত্যু হয়।

পরিসংখ্যান অনুসারে, গত এক সপ্তাহে করোনায় মৃত ৭৯ জনের মধ্যে পুরুষ ৪৭ জন ও নারী ২৩ জন। তাদের মধ্যে ৫১ জনই (৬৪ দশমিক ৬ শতাংশ) টিকা নেননি। অবশিষ্ট ২৮ জন (৩৫ দশমিক ৪ শতাংশ) টিকা নিয়েছেন। এ ২৮ জনের মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ছয়জন ও ২২ জন নিয়েছেন দ্বিতীয় ডোজ। গত একসপ্তাহে করোনায় মৃত ৭৯ জনের মধ্যে ৫২ জনের কো-মরবিডিটিতে ভুগছিলেন। তাদের মধ্যে অধিকাংশ রোগী ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপে ভুগছিলেন। এছাড়া অনেকে বক্ষব্যাধি, হৃদরোগ, কিডনি, গ্যাস্ট্রোলিভার, স্ট্রোক এবং ক্যানসারে ভুগছিলেন।

অন্যদিকে, করোনাভাইরাসের (কোভিড ১৯) আক্রান্ত হয়ে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে পুরুষ ৯ জন ও নারী ৬জন। সরকারি হাসপাতালে ১২ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে তিনজনের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ২৩৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৮২৮ জন। শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ৩৭ শতাংশ। সুস্থ হয়েছেন ৯৯৮ জন।

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশের সরকারি ও বেসরকারি ৮৫৭ টি ল্যাবরেটরিতে ৪৫ হাজার ৯৯৯টি নমুনা সংগ্রহ ও ৪৫ হাজার ৮০৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ২১ লাখ ৬২ হাজার ৬৮৭ টি। নমুনা পরীক্ষায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৪ হাজার ৮২৮ জন।

দেশে গত ২০২০ সালের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৬ লাখ ৯৯ হাজার ৯৬৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯৯৮ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৫৭ হাজার ৮৫৯ জন। সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ৬৪ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে বিশোর্ধ্ব দুইজন, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব তিনজন, ষাটোর্ধ্ব তিনজন, সত্তরোর্ধ্ব পাঁচজন এবং ৯০ বছরের বেশী বয়সী একজনের মৃত্যু হয়। বিভাগওয়ারী ঢাকা বিভাগে ছয়জন, চট্টগ্রামে একজন, রাজশাহীতে একজন, খুলনায় একজন, বরিশালে একজন, সিলেটে দুইজন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে তিনজনের মৃত্যু হয়।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ