বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৫০ পূর্বাহ্ন

চালসহ ৯টি পণ্যের দাম বেঁধে দেবে সরকার: বাণিজ্যমন্ত্রী

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : আগস্ট ৩০, ২০২২
চালসহ ৯টি পণ্যের দাম বেঁধে দেবে সরকার: বাণিজ্যমন্ত্রী

পণ্যের সরকার নির্ধারিত দামের বেশি নিলে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, ভোজ্য তেলের মতো চাল, চিনি, ডাল, চা-পাতা, রড, সিমেন্টসহ মোট ৮-৯টি পণ্যের দাম নির্দিষ্ট করে দেবে বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশন। আজ মঙ্গলবার (৩০শে আগস্ট) দুপুরে সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দ্রব্যমূল্য নিয়ে এক সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা জানান।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেছেন, সরকার নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, মজুত ও মূল্য স্বাভাবিক রাখতে সবধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ভোক্তার অধিকার সুরক্ষায় বাংলাদেশ ট্রেড এন্ড টেরিফ কমিশন এবং জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর কাজ করে যাচ্ছে। ব্যবসায়ী সংগঠন, ব্যবসায়ী এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সততার সাথে ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য সবধরনের সহযোগিতা প্রদান করা হচ্ছে।

এরপরও দেখা যাচ্ছে কিছু পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি করা হচ্ছে। এ ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে নিয়মিত বাজার অভিজান পরিচালনা করা হচ্ছে। এখন থেকে অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে শুধু জরিমানা আদায় নয়, কঠোর আইনি ব্যবস্থাও নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এখন থেকে বাংলাদেশ ট্রেড এন্ড টেরিফ কমিশন আমদানিকারক ও সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপ আলোচনা করে যৌক্তিক মূল্য নিশ্চিত করতে পণ্যের মূল্য প্রতিমাসেই নির্ধারণ করে দিবে। অবিলম্বে এ কাজ শুরু করা হবে। পণ্যগুলো হলো চাল, গম(আটা, ময়দা) ভোজ্যতেল,(সয়াবিন, পাম), পরিশোধিত চিনি, মশুর ডাল, পেঁয়াজ, রড় এবং সিমেন্ট। এছাড়াও কোন পণ্যের অযৌক্তিক মূল্য বৃদ্ধি করা হলে সেগুলোরও মূল্য নির্ধারণ করে দিবে সরকার।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন ও পাম ওয়েল এর মূল্য কিছুটা কমলেও ডলারের মূল্য বৃদ্ধির কারনে এর সুফল পাওয়া যাচ্ছে না। সরকার এ বিষয়ে সতর্ক আছে, কিছুদিন পর পর এর মূল্য সমন্বয় করা হচ্ছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্বাভাবিক রাখতে সরকার ইতোমধ্যে চাল আমদানীর উপর থেকে ট্যাক্স তুলে নিয়েছে। জ্বালানি তেলের মূল্য কমানো হয়েছে। প্রয়োজনে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হতে পারে, তবে ভোক্তাদের স্বার্থ রক্ষা এবং দেশীয় শিল্প সুরক্ষার নামে যাতে কেউ অনৈতিক সুযোগ নিতে না পারে, সেদিকেও নজর রাখা হবে। এ ক্ষেত্রে অনিয়ম পাওয়া গেলে কঠোর আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ