শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:২০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
৩৬ বছর পর বিশ্বকাপের নকআউটে মরক্কো ২৪ বছর পর গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় বেলজিয়ামের গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে সরকার বেসামাল হয়ে গেছে : রিজভী বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম নির্ধারণ করতে পারবে সরকার আমাদের ও আওয়ামী লীগের মাঝখানে আসবেন না: সালাম ইসলামি ব্যাংক থেকে মালিকপক্ষের ৩০ হাজার কোটি টাকা ঋণ পোশাক রপ্তানিতে আবারো দ্বিতীয় স্থানে বাংলাদেশ ডেঙ্গুতে মৃত্যুহীন দিনে ৩৮০ জন হাসপাতালে ভর্তি আশার আলো দেখাচ্ছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স দেশের কথা না ভেবে সরকার বিদেশে অর্থ পাচার করছে: ড. কামাল ডিসেম্বরকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস ঘোষণার দাবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পুলিশ প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে যা জানালেন বিএনপি নেতারা ডিএমপির ছয় কর্মকর্তা বদলি শুরু হলো সারাদেশে পুলিশের বিশেষ অভিযান করোনা টিকাদানের বিশেষ কর্মসূচি শুরু

জার্মানির কোলন মসজিদে এই প্রথম মাইকে আজান প্রচার

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : অক্টোবর ১৫, ২০২২
জার্মানির কোলন মসজিদে এই প্রথম মাইকে আজান প্রচার

জার্মানির কোলন মসজিদে এই প্রথম মাইকে আজান প্রচারিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (১৪ অক্টোবর) আজান প্রচারের মধ্য দিয়ে জুম্মার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। খবর ডেইল সাবাহ’র

মাইকে আজান প্রচারের অনুমতি দানের জন্য শহর কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তুরস্কের ইসলামি ইউনিয়ন ফর রিলিজিয়াস অ্যাফেয়ার্স এর সেক্রেটারি জেনারেল আবদুর রহমান আটাসয়।

জার্মানির অন্যতম বৃহত্তম শহর কোলন। এখানে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার মুসল্লির বসবাস। যা শহরের মোট জনসংখ্যার প্রায় ১২ শতাংশ।

পাইলট প্রজেক্টের আওতায় শহর কর্তৃপক্ষ মাইকে আজানের অনুমতি প্রদান করেন। তবে এক্ষেত্রে শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়। বলা হয় মাইকে আজানের শব্দ ৬০ ডেসিবলের মধ্য থাকতে হবে।

মাইকে আজান দেওয়ার ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেন শহরটির মেয়র হেনরিয়েট রেকার। তবে এ কাজের জন্য তিনি ডানপন্থীদের কাছ থেকে ব্যাপক সমালোচনার শিকার হন।

জার্মানির সংবিধান অনুযায়ী সব ধর্মের মানুষ স্বাধীনভাবে তাদের ধর্ম পালন করতে পারবেন। তবে স্পিকারে আজান দেওয়ার ক্ষেত্রে দেশটিতে কিছু বিধি বিধান রয়েছে।

মাইকে আজান দেওয়ার বিষয়ে অনেক আগে থেকেই বিরোধিতা করে আসছে দেশটির ডানপন্থী দলের রাজনীতিবিদরা। তাদের আশঙ্কা এর মাধ্যমে জার্মানিতে ইসলামের প্রসার ঘটতে পারে।

জার্মানিতে মোট ৮ কোটি ৪০ লাখ মানুষের বসবাস। পশ্চিম ইউরোপের এ দেশটিতে ফ্রান্সের পরই সবচেয়ে বেশি মুসলিম জনসংখ্যার বসবাস।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ