মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৩৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পঞ্চগড়ে মন্দিরগামীদের নিয়ে নৌকাডুবি, ২৪ জনের লাশ উদ্ধার, অনেকেই নিখোঁজ ডিএনসিসি মেয়র, ওয়াসা এমডিকে কারাগারে পাঠাতে চান নদী কমিশন চেয়ারম্যান নতুন মূল্য নির্ধারণ: পাম অয়েলে কমলো ১২ টাকা, চিনিতে ৬ টাকা বেনজীরের বিদায়, পুলিশের নতুন আইজি মামুন, র‌্যাবের ডিজি খুরশীদ ডলারে অতিরিক্ত মুনাফার অভিযোগ থেকে মুক্ত ছয় ব্যাংকের ট্রেজারি কর্তারা শত অনিয়মের আখড়া ছিল ই-ভ্যালি, ছিলনা আয়-ব্যয়ের হিসাব ১৬ কোটি মানুষের কাছে কৃতজ্ঞতা সাফজয়ী অধিনায়ক সাবিনার ল্যাব থাকলেও টেস্ট ছাড়াই হালাল সনদ দেয় ইসলামিক ফাউন্ডেশন ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ও সোনার বাংলা ক্যাপিটাল’র আমানত-দায় শেয়ারে রূপান্তর, চুক্তি সকল শক্তি দিয়েও নদী দখলকারীদের উচ্ছেদ করা যাচ্ছেনা: টুকু হংকংকে হারিয়ে সুপার ফোর নিশ্চিত করল ভারত প্রধানমন্ত্রীকে হত্যা ষড়যন্ত্রে সরকারি দলের লোকজন জড়িত হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া বিএনপি-জামাতের সম্পর্ক ভেতরে অটুট: কাদের দেশে জ্বালানি তেলের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

তাজিয়া মিছিলে হাজারো মানুষের অংশগ্রহণ

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : আগস্ট ৯, ২০২২
তাজিয়া মিছিলে হাজারো মানুষের অংশগ্রহণ

যথাযথ মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে পালিত হচ্ছে পবিত্র আশুরা। ১০ই মহররম মুসলিম উম্মাহর কাছে তাপর্যপূর্ণ দিন। এইদিনে নফল ইবাদত ও দোয়া করেন মুসলমানরা। এছাড়া কারবালার শোকাবহ ঘটনার স্মরণে রাজধানীতে তাজিয়া মিছিল করেছে শিয়া সম্প্রদায়ের অনুসারীরা। এ উপলক্ষে রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

হিজরি সনের প্রথম মাস মহররমের ১০ তারিখ পালিত হয় পবিত্র আশুরা। কারবালার প্রান্তে শহীদ হওয়া ইমাম হোসেনের স্মরণে এই দিনে শিয়া সম্প্রদায়ের অনুসারীরা তাজিয়া মিছিল বের করে। করোনা অতিমারীর কারণে গত দুই বছর রাজধানীসহ দেশের কোথাও তাজিয়া মিছিল হয়নি। দুই বছর পর এবার আশুরার ঐতিহ্যবাহী তাজিয়া মিছিল বের হয় পুরান ঢাকায় শিয়া সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় কেন্দ্র ইমামবাড়া হোসেনি দালান থেকে।

অংশগ্রহনকারীরা বলেন মুসলিম বিশ্বকে অন্যায়ের কাছে মাথা নত না করার শিক্ষা দেয় পবিত্র আশুরা।

নিরাপত্তার কারণে মিছিলে ধারালো ধাতব অস্ত্র বহন নিষিদ্ধ ছিল। তাই, শুধু পতাকা ছিলো মিছিলে। যার মাধ্যমে কারবলার নির্মমতার করুণ আবহ ফুটিয়ে তোলা হয়।

ঐতিহ্যবাহী এই তাজিয়া মিছিলটি বকশীবাজার রোড ও নিউ মার্কেট এলাকা প্রদক্ষিণ করে ধানমন্ডি হয়ে আবারো হোসেনি দালান ইমাম বাড়ায় গিয়ে শেষ হয়।

পুরো এলাকার নিরাপত্তায় সতর্ক ছিল গোয়েন্দাসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর কয়েক হাজার সদস্য।

আরবী মহররম মাসের ১০ তারিখ নানা কারণে মুসলমানদের কাছে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে জানান হোসেনি দালানের ইমাম।

এদিকে, কারবালার শোকাবহ ঘটনার স্মরণে নফল রোজা ও ইবাদত বন্দেগী করেন মুসলমানরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ