মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
বায়োপসির জন্য খালেদা জিয়ার নমুনা সংগ্রহ, ফল পেতে লাগবে দু’সপ্তাহ বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের ২১৪ কোটি টাকা ফেরত দিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পদক্ষেপ ফৌজদারি কার্যবিধি সময়োপযোগী করতে আইন মন্ত্রণালয়ের কমিটি গঠণ পীরগঞ্জে হিন্দুপাড়ায় হামলা : আরো দু’জনকে গ্রেপ্তারের দাবি পুলিশের খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো না, কোকোর স্ত্রী এসেছেন ডিসেম্বরে ড্যাপ গেজেট, যৌক্তিক কারণে হতে পারে সংশোধন: তাজুল পুলিশ কনস্টবলের ৩০০০ পদে আবেদন ৩.৩৮ লাখ, প্রথম বাছাইয়ে বাদ ২.২১ লাখ লিটন দাসের জোড়া ক্যাচ মিসে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচটাও হাতছাড়া টাইগারদের ধারাবাহিকভাবে রেমিট্যান্স কমার প্রভাবে ডলারের দাম বৃদ্ধি অব্যাহত রোহিঙ্গা শিবিরে সহিংসতার নেপথ্যে ৪ কারণ ধর্মীয় সম্প্রীতি রক্ষায় প্রতি ওয়ার্ডে কমিটি গঠণের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক যেকোনও অংশীদারের চেয়ে গভীরতর: শ্রিংলা বিএফইউজে সভাপতি ওমর ফারুক, মহাসচিব দীপ আজাদ যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতকে ‘বহিষ্কার’ তুরস্কের পীরগঞ্জে হামলা ব্যক্তিগত বিরোধের জেরে: র‍্যাব স্বপ্নের পায়রা সেতু উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ভোজ্যতেল-মুরগির দাম আরও বেড়েছে, অস্বস্তিতে বিক্রেতারাও ভোর রাতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় হামলা, নিহত ৬ কারা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করছে খুঁজে দেখতে হবে: জি এম কাদের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মাদক ও অস্ত্রের ব্যবসা বন্ধে প্রয়োজনে গুলি ছুড়তে হবে

তারেক রহমানকে ‘বিন লাদেন’-এর সঙ্গে তুলনা করলেন নানক

রিপোর্টারের নাম : / ১২ জন দেখেছেন
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৬ অপরাহ্ন

বৃত্তান্ত প্রতিবেদক: বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর সন্ত্রাসী হামলার হোতা, আল কায়দা নেতা ওসামা বিন লাদেনের সঙ্গে তুলনা করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক।

তিনি বলেছেন, আন্দোলনের নামে আর বাংলাদেশকে রণক্ষেত্রে পরিণত করতে দেওয়া হবে না।

সোমবার ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের ইউনিটসমূহের সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের রিং রোডের সূচনা কনভেনশন সেন্টারে ২৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ইউনিট সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে যার শুরু হয়।

তারেক রহমানের দিকে ইঙ্গিত করে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘লন্ডনে বসে সন্ত্রাসের হুমকি দেন। লাদেন হয়েছেন। ৪ দিন রুদ্ধদার মিটিং করলেন। লন্ডন থেকে প্রসাদসম বাড়িতে বসে বাংলাদেশে চাঁদাবাজি করে নিয়ে বাংলাদেশকেই রণক্ষেত্রে পরিণত করবেন। সেই রণক্ষেত্রে পরিণত করতে দেওয়া হবে না।’

শ্বেত সন্ত্রাস করে জনগণের মন জয় করা যায় না বলেও এ সময় বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্যে করে বলেন বলেন তিনি।

দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে করে তিনি বলেন, ‘যারা আদর্শবান। যারা দীর্ঘদিন ধরে দলের জন্য বিসর্জন দিয়ে গিয়েছে, তাদেরকে দলের নেতৃত্বে নিয়ে আসতে হবে। তাহলেই দল শক্তিশালী হবে। মনে রাখতে হবে, বিএনপি থেকে যারা আসে, যুবদল থেকে যারা আসে তারা দলের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করে।’

আওয়ামী লীগের উপস্থিত নেতাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমি এই ওয়ার্ডেরই একজন বাসিন্দা, ভোটার। মোহাম্মদপুরে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ভেতরে বুক ফাটা চাপা কান্না রয়েছে। সেই চাঁপা কান্না আপনাদের শুনতে হবে, বুঝতে হবে। আর সেই কান্না হলো আমরা যোগ্য জায়গায় সম্মানিত হই নি পূর্বে। আমি বিশ্বাস করতে চাই বর্তমান মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে কেউ নি:ঘৃত হবেন না।’

তিনি বলেন, ‘মির্জা আজমের চিন্তা চেতনায়, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে এই যে ইউনিট সম্মেলন শুরু হলো তা আওয়ামী লীগের জন্য একটি ঐতিহাসিক ঘটনা।’

দলের ঢাকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, ‘ঢাকা মহানগর উত্তরে ১,৪০০ ইউনিট আছে। এর প্রত্যেকটির সম্মেলন হলে ঢাকা মহানগর উত্তরের ইতিহাসে সর্বচেয়ে শক্তিশালী সংগঠনের রুপ নিবে। ফলে প্রায় ৫৬ হাজার তৃণমূল নেতা পদ পদবী পাবে। যেই কর্মীদের কোন পদ-পরিচয় ছিল না। যদি আওয়ামী লীগের ৫৬ হাজার হয় অন্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন তারা যদি একইভাবে  ইউনিট কমিটি করে সংগঠন গোছায় তাহলে আগামীতে এই ঢাকা মহানগরীতেই ৫ লক্ষ নেতা আওয়ামী লীগের পরিচয়ধারী থাকবে।’

তিনি বলেন, ‘আমি দায়িত্ব পাওয়ার পর ঢাকা মহানগরীতে দুটি নির্বাচনে পরিচালনার দায়িত্ব পেয়ে দেখেছি, যে একটি নির্বাচনী এলাকায় গত ১৮ বছর ধরে সর্বসাকুল্যে ৩২ জন নেতার দলের পদ-পদবী আছে। আর কোন নেতার পদ নেই। সে কারণে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় সম্মেলন ছাড়া কমিটি গঠনের যে রেওয়াজ সেই রেওয়াজ থেকে বাইরে আসার আমি অনুরোধ জানিয়েছিলাম।’

এ সময় ঢাকা মহানগর উত্তর ও ঢাকা জেলার দলীয় কোন কার্য়ালয়ে নেই জানিয়ে দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘আমি সাংগঠননিক সম্পাদকের দায়িত্বে আসার পর জেনেছি যে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক কাঠামোগতভাবে দূর্বলতা রয়েছে। আমি জেলা পর্য়ায়ে রাজনীতি করেছি, প্রত্যেকটা জেলা ও উপজেলা সাংগঠনিক কাঠামো নিয়ে আমার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আজকে আমরা যে ইউনিটের সম্মেলন করছি, প্রশাসনিক একটি ওয়ার্ড একটি ইউনিটের সমান। আজ থেকে ২০ বছর আগেও দেখেছি, একটি ওয়ার্ডের সম্মেলন হলে মানুষের অনেক ভীড় হয়। কিন্তু ঢাকায় ইউনিট কমিটিগুলো সম্মেলন ছাড়াই এতদিন হচ্ছিল।’

এর আগে সকালে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ওবায়দুল কাদের।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি, সহ সভাপতি সাদেক খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনে সভাপতিত্বে করেন ২৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সলিমউল্লাহ সলু। সঞ্চালনা করেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ