শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:২৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
৩৬ বছর পর বিশ্বকাপের নকআউটে মরক্কো ২৪ বছর পর গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় বেলজিয়ামের গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে সরকার বেসামাল হয়ে গেছে : রিজভী বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম নির্ধারণ করতে পারবে সরকার আমাদের ও আওয়ামী লীগের মাঝখানে আসবেন না: সালাম ইসলামি ব্যাংক থেকে মালিকপক্ষের ৩০ হাজার কোটি টাকা ঋণ পোশাক রপ্তানিতে আবারো দ্বিতীয় স্থানে বাংলাদেশ ডেঙ্গুতে মৃত্যুহীন দিনে ৩৮০ জন হাসপাতালে ভর্তি আশার আলো দেখাচ্ছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স দেশের কথা না ভেবে সরকার বিদেশে অর্থ পাচার করছে: ড. কামাল ডিসেম্বরকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস ঘোষণার দাবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পুলিশ প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে যা জানালেন বিএনপি নেতারা ডিএমপির ছয় কর্মকর্তা বদলি শুরু হলো সারাদেশে পুলিশের বিশেষ অভিযান করোনা টিকাদানের বিশেষ কর্মসূচি শুরু

তীব্র গ্যাস সংকটে ভুগছে আশুগঞ্জ বিদ্যুৎকেন্দ্র

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা
আপডেট : নভেম্বর ২৩, ২০২২
তীব্র গ্যাস সংকটে ভুগছে আশুগঞ্জ বিদ্যুৎকেন্দ্র

তীব্র গ্যাস সংকটে ভুগছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্র। পর্যাপ্ত গ্যাস না পাওয়ায় এই কেন্দ্রে দৈনিক উৎপাদন কমেছে ৫’শ মেগাওয়াটের বেশি। ৬টি ইউনিটের মধ্যে ১টির উৎপাদন পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বাকী ৫টিও চলছে ধুঁকে ধুঁকে।

এছাড়া নতুন ৪শ’ মেগাওয়াট ক্ষমতার কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্ল্যান্ট পরীক্ষামূলকভাবে চালু হলেও বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনে আসতে পারছে না। শিগগিরই গ্যাস সরবরাহ বাড়ার সম্ভাবনা না থাকায় সংকট দূর হতে সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৬টি ইউনিটের সবকটিই গ্যাসভিত্তিক। দৈনিক উৎপাদন ক্ষমতা ১৪শ’ ২৫ মেগাওয়াট। কিন্তু গ্যাস সংকটের কারণে এরইমধ্যে ১৫০ মেগাওয়াটের ১টি ইউনিট বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আর বাকি পাঁচটি ইউনিটও চলছে ধুঁকে ধুঁকে।

আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই পাঁচটি ইউনিট চালু রাখতে প্রতিদিন প্রায় ২৩০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের প্রয়োজন হয়। কিন্তু বাখারাবাদ গ্যাস ক্ষেত্র থেকে সরবরাহ করা হচ্ছে ১৫০ থেকে ১৬০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস। ফলে ৫টি ইউনিটে যেখানে ১ হাজার ২৭৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হওয়ারর কথা, সেখানে জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে সাড়ে ৮শ’ থেকে ৯শ’ মেগাওয়াট।

গ্যাস সংকটের কারণে স¤প্রতি স্থগিত ৪শ মেগাওয়াটের নতুন কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্ল্যান্টটি বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনে যেতে পারছেনা। এই ইউনিট থেকে বাণিজ্যিকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য প্রতিদিন প্রায় ৫০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের প্রয়োজন।

এদিকে, সহসাই গ্যাসের সরবরাহ বাড়ানো সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন, বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির কর্মকর্তারা। পর্যাপ্ত গ্যাস সরবরাহ করে এই বিদ্যুৎকেন্দ্রের সবক’টি ইউনিট চালু করতে পারলে দেশের বিদ্যুৎ ঘাটতি অনেকটাই কমবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ