বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৬:৫০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
যুক্তরাষ্ট্রেকে হারিয়ে সুপার এইটে ভারত বাংলাদেশের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা তুলে নি‌ল ওমান তিস্তা মহাপরিকল্পনার বর্তমান পরিস্থিতি জানালেন প্রধানমন্ত্রী ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি-রাজনীতি ধ্বংস করেছে সরকার : মির্জা ফখরুল বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ কুয়েতে শ্রমিক আবাসন ভবনে আগুন, নিহত ৪১ এমপি আনার হত্যার তদন্ত সঠিক পথেই এগুচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ইউনূসকে বিচারের নামে হয়রানি করা হচ্ছে: ব্যারিস্টার খোকন বিচার প্রক্রিয়া সম্পর্কে ড. ইউনূসের বক্তব্য অসত্য: আইনমন্ত্রী আদালতে খাঁচার ভেতর দাঁড়িয়ে থাকা অপমানজনক: ড. ইউনূস মূল্যস্ফীতির হার সাড়ে ৬ শতাংশে নামানো অবাস্তব: সিপিডি বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে বিমান বাহিনীর প্রধানের শ্রদ্ধা পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি অভিযানে ৬ ফিলিস্তিনি নিহত সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশের তালিকায় তৃতীয় বাংলাদেশ

তৃতীয় লিঙ্গ ও প্রতিবন্ধীকে চাকরি দিলে কর ছাড়

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুন ১০, ২০২২
তৃতীয় লিঙ্গ ও প্রতিবন্ধীকে চাকরি দিলে কর ছাড়

প্রতিবন্ধী ও তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর মানুষদের চাকরি দিলে ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিশেষ কর ছাড়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে৩ টায় জাতীয় সংসদে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বাজেট বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, “যদি কোনো প্রতিষ্ঠান তার মোট কর্মচারীর ১০ শতাংশ বা ২৫ জনের অধিক প্রতিবন্ধী বা তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিদের নিয়োগ দেয়, তবে ওই কর্মচারীদের পরিশোধিত বেতনের ৭৫ শতাংশ বা প্রদেয় করের ৫ শতাংশ, যেটি কম, তা নিয়োগকারীকে কর রেয়াত হিসেবে অনুমোদনের প্রয়োজনীয় বিধান সংযোজনের প্রস্তাব করছি।”

তিনি বলেন, বর্তমানে (২০২১-২২ অর্থবছরে) নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ হিসেবে প্রতিষ্ঠানে কর্মরত মোট জনবলের ন্যূনতম ১০ শতাংশ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়োগ করলে ওই করদাতাকে প্রদেয় করের ৫ শতাংশ কর রেয়াত প্রদান এবং যদি কোনো প্রতিষ্ঠান তার মোট কর্মচারীর ১০ শতাংশ বা ১০০ জনের অধিক তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিদের নিয়োগ দেয়, তবে ওই কর্মচারীদের পরিশোধিত বেতনের ৭৫ শতাংশ বা প্রদেয় করের ৫ শতাংশ, যেটি কম, তা নিয়োগকারীকে কর রেয়াত হিসেবে অনুমোদনের বিধান চালু রয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, “বর্তমান সরকার দেশের প্রান্তিক ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সমাজ এবং অর্থনীতির মূলধারায় অন্তর্ভুক্তির লক্ষ্যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রান্তিক ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর অন্যতম একটি বৃহৎ অংশ হচ্ছে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। এ জনগোষ্ঠী অন্যদের চেয়ে আর্থ-সামাজিকভাবে পিছিয়ে আছে। তারা সমাজের মূলধারার বাইরে রয়েছে। কর্মক্ষম ও পিছিয়ে পড়া এ জনগোষ্ঠীকে উৎপাদনমুখী কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করতে পারলে সামাজিক অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত হবে।”

মন্ত্রী বলেন, “এ পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের কর্মসংস্থান, জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক আত্তীকরণের লক্ষ্যে আমি মহান এ সংসদে বর্তমানে চালুকৃত বিশেষ কর প্রণোদনাকে আরও প্রসারিত করার প্রস্তাব করছি।”


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ