বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৭:৪৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
যুক্তরাষ্ট্রেকে হারিয়ে সুপার এইটে ভারত বাংলাদেশের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা তুলে নি‌ল ওমান তিস্তা মহাপরিকল্পনার বর্তমান পরিস্থিতি জানালেন প্রধানমন্ত্রী ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি-রাজনীতি ধ্বংস করেছে সরকার : মির্জা ফখরুল বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ কুয়েতে শ্রমিক আবাসন ভবনে আগুন, নিহত ৪১ এমপি আনার হত্যার তদন্ত সঠিক পথেই এগুচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ইউনূসকে বিচারের নামে হয়রানি করা হচ্ছে: ব্যারিস্টার খোকন বিচার প্রক্রিয়া সম্পর্কে ড. ইউনূসের বক্তব্য অসত্য: আইনমন্ত্রী আদালতে খাঁচার ভেতর দাঁড়িয়ে থাকা অপমানজনক: ড. ইউনূস মূল্যস্ফীতির হার সাড়ে ৬ শতাংশে নামানো অবাস্তব: সিপিডি বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে বিমান বাহিনীর প্রধানের শ্রদ্ধা পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি অভিযানে ৬ ফিলিস্তিনি নিহত সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশের তালিকায় তৃতীয় বাংলাদেশ

ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : মে ১৪, ২০২২

ত্রিপুরার পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন মানিক সাহা। কিছুদিন আগেই তিনি রাজ্যসভার সদস্য নির্বাচিত হন। এর আগে ছিলেন, বিজেপির প্রাদেশিক সভাপতি। শনিবার (১৪ মে) তাকে সভাপতির পদ ছাড়তে বলা হয়। নতুন সভাপতি করা হয়, সদ্য পদত্যাগ করা মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেবকে। খবর ইন্ডিয়া টুডের।

মুখ্যমন্ত্রী পদে বিপ্লব দেব ইস্তফা দেওয়ায় রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব জরুরি বৈঠকে বসে। দুটি নাম নিয়ে চর্চা চলছিল-মানিক সাহা এবং রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী জিষ্ণু দেববর্মা। শেষ পর্যন্ত মানিক সাহার কাঁধে রাজ্যশাসনের দায়িত্ব তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল প্রদেশ নেতৃত্ব।

সূত্রে পাওয়া খবরে জানা গেছে, বিপ্লব দেবকে রাজ্যসভায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। মানিক সাহা সংসদ সদস্য পদ থেকে ইস্তফা দেবেন। তার জায়গায় বিপ্লব দেবকে প্রার্থী করা হবে।

বিপ্লব দেব ইস্তফা দেওয়ায় রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব জরুরি বৈঠকে বসে। গঠন করা হয় কমিটি। দিল্লি থেকে পর্যবেক্ষক হিসেবে পাঠানো হয় ভূপেন্দ্র যাদবকে। তার নেতৃত্বে হয়েছে বৈঠক। ওই বৈঠকেই মানিক সাহার হাতে মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্বভার তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এর কারণ হিসেবে উঠে এসেছে, দলে তার গ্রহণযোগ্যতা। পাশাপাশি সকলকে নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতাও রয়েছে। রয়েছে সাংগঠনিক অভিজ্ঞতা। সে কারণে মুখ্যমন্ত্রী পদে রাজ্য নেতৃত্ব তাকে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়। সরকারিভাবে বিজেপি ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রীর নাম ঘোষণা করেনি। এখনও পর্যন্ত খবরে জানা যায়, শনিবার রাত আটটা নাগাদ সরকারিভাবে মুখ্যমন্ত্রীর নাম ঘোষণা করা হবে।

এর আগে পদত্যাগ করেছেন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। এক লাইনের চিঠি লিখে পদত্যাগের কথা জানান তিনি রাজ্যপালকে। রাজ্যটির বিধানসভা নির্বাচনের কয়েক মাস আগে মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়লেন তিনি। আগামী বছরেই ওই রাজ্যে বিধানসভা ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, বিপ্লবের বিরুদ্ধে গুচ্ছ গুচ্ছ অভিযোগ জমা হচ্ছিল, তাতে তিনি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরাগভাজন হচ্ছিলেন। তাছাড়া প্রশাসনের বিভিন্ন প্যারামিটারেও বিপ্লবের ত্রিপুরা সরকার ক্রমেই পিছিয়ে পড়ছিল। মাত্র চার বছরেই ত্রিপুরা সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান বিরোধিতা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছিল। সম্ভবত ওই কারণেই বিধানসভা ভোটের আগে মুখ বদল করল গেরুয়া শিবির।

রাজনৈতিকমহলে মনে করছে, খুব কঠিন সময় রাজ্য শাসনের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হলো মানিক সাহার কাঁধে। কারণ, তাদের শত্রু এখন আর সিপিএম নয়।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ