শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:৪২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
৩৬ বছর পর বিশ্বকাপের নকআউটে মরক্কো ২৪ বছর পর গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় বেলজিয়ামের গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে সরকার বেসামাল হয়ে গেছে : রিজভী বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম নির্ধারণ করতে পারবে সরকার আমাদের ও আওয়ামী লীগের মাঝখানে আসবেন না: সালাম ইসলামি ব্যাংক থেকে মালিকপক্ষের ৩০ হাজার কোটি টাকা ঋণ পোশাক রপ্তানিতে আবারো দ্বিতীয় স্থানে বাংলাদেশ ডেঙ্গুতে মৃত্যুহীন দিনে ৩৮০ জন হাসপাতালে ভর্তি আশার আলো দেখাচ্ছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স দেশের কথা না ভেবে সরকার বিদেশে অর্থ পাচার করছে: ড. কামাল ডিসেম্বরকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস ঘোষণার দাবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পুলিশ প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে যা জানালেন বিএনপি নেতারা ডিএমপির ছয় কর্মকর্তা বদলি শুরু হলো সারাদেশে পুলিশের বিশেষ অভিযান করোনা টিকাদানের বিশেষ কর্মসূচি শুরু

নিউজ প্রেজেন্টার হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে যা জানা জরুরি

এস এম ফয়েজ
আপডেট : অক্টোবর ১৪, ২০২২
নিউজ প্রেজেন্টার হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে যা জানা জরুরি

স্বপ্ন মানুষকে পথ দেখায়, শেখায় বাচঁতে। সবার কাছে নিজেকে পরিচিত করাও একটা স্বপ্ন। ডাক্তার, জজ-ব্যারিস্টার, শিল্পী, সরকারি অফিসার, রাজনীতিবিদ কিংবা নিউজ প্রেজেন্টার বা উপস্থাপক হওয়ার স্বপ্ন তরুণ-তরুণীদের। ভবিষৎ স্বপ্ন বাস্তবায়নে সব সময় চেষ্টা করতে হবে। নিজেকে তৈরি করতে হবে।
মনে রাখবেন আপনার স্বপ্নের সফলতা আপনার কাছেই। কিভাবে বাস্তবায়ন করবেন তা নির্ভর করবে আপনার কাজের ওপর। নিজেকে যত সুন্দরভাবে তৈরি করতে পারবেন, ততই স্বপ্ন পূরণের পথে সফল হবেন আপনি।

সংবাদ উপস্থাপনা: উপস্থাপনা হলো বলা, পাঠ করা বা তথ্যের সুন্দর উপস্থাপন করা। সবার আগে নিজেকে সংবাদ বুঝতে হবে, জানতে হবে। পরে তা দর্শকের কাছে সুন্দর করে পৌঁছানোই হলো সংবাদ পাঠ বা নিউজ প্রেজেন্টিং। রাষ্ট্রের মধ্যে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনার স্ক্রিন ও কণ্ঠ উচ্চারণই আধুনিক সংবাদ উপস্থাপনা।১৯৯৯ সালে দেশে বেসরকারি অনেক চ্যানেলের যাত্রা শুরু হয়। আর বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলো তরুণ-তরুণীর স্বপ্নকে আরও জাগ্রত করেছে। তারা আগ্রহী হয়ে উঠছে এই পেশায় ক্যারিয়ার গড়তে।

উপস্থাপনার কৌশল: সংবাদ উপস্থাপনায় আসতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মান শ্রেণিতে পড়াকালীন যে কোনো তরুণ-তরুণী আসতে পারেন। তবে সংবাদ উপস্থাপনার টেকনিক্যাল বিষয়গুলো সর্ম্পকে জানতে হবে। জানতে হবে সমকালীন বিশ্ব সম্পর্কে। কৌতূহলীরা এই পেশায় খুব ভালো করেন। জানার আগ্রহ যাদের বেশি সংবাদের গভীরে তারাই যেতে পারেন। সংবাদ পাঠক-পাঠিকার বাচনভঙ্গি, উচ্চারণ, সাম্প্রতিক বিষয়ে ধারণা এবং উপস্থিত বুদ্ধি থাকা খুব জরুরি। উচ্চারণ ভালো হতে হবে। আঞ্চলিকতার টান থাকা যাবে না। খবর সরাসরি সম্প্রচার করা হয়, অনেক টেকনিক্যাল সমস্যা থাকতে পারে, অনেক ভুল হতে পারে- সংবাদ পাঠক-পাঠিকার উপস্থিত বুদ্ধি এ সময় জরুরি। মনে রাখতে হবে, হঠাৎ করে কোনো ব্রেকিং নিউজ হতে পারে, তখন স্ক্রিপ্ট ছাড়াই সংবাদটি পড়তে হবে।

চ্যালেঞ্জ: প্রত্যেক প্রেজেন্টারকে নিউজ, নিউজ ভ্যালু, এফেক্ট, পারসপেকটিভ, অ্যাঙ্গেল ইত্যাদি জানতে ও বুঝতে হবে। ছবি, ভিজ্যুয়ালকে গুরুত্ব দিতে হবে; একই সঙ্গে জানতে হবে দেশি-বিদেশি নানা তথ্য। দেখতে হবে দেশি-বিদেশি চ্যানেলের নিউজ। সংবাদ সম্পর্কে বাস্তব ধারণা থাকাটা অত্যন্ত জরুরি।

অর্থাৎ তিনি হবেন একজন পরিপূর্ণ সংবাদ সচেতন মানুষ। যিনি প্রথমে সংবাদকে বুঝবেন পরে সঠিক উচ্চারণে সংবাদটি দর্শককে বোঝাবেন। সংবাদ উপস্থাপনা খুবই চ্যালেঞ্জিং জব। এখানে নিজেকে তৈরি করতে না পারলে প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে থাকতে হবে। একটা কোর্স করেই কিন্তু আপনি নিউজ প্রেজেন্টার হতে পারবেন না।

দায়িত্ব: একজন সংবাদ পাঠক বা নিউজ প্রেজেন্টারকে খবর পড়ার তিন ঘণ্টা আগে অফিসে আসতে হয়। অফিসের কাজটুকু সম্পর্কে তার পুরো ধারণা থাকতে হবে। দায়িত্ববান থাকতে হবে। সময়ের প্রতি গুরত্ব দিতে হবে। কোনভাবেই দেরি করা যাবে না। নিউজ সর্ম্পকে জানতে হবে। মেকাপ নিতে হবে। পোশাক বাছাই করতে হবে। কারণ চ্যানেলগুলো ভিন্ন ভিন্ন পোশাক পছন্দ করেন। ছেলেদের জন্য শার্ট-প্যান্ট ও ব্লেজার আর মেয়েদের জন্য শাড়ী, কেউ থ্রি-পিজ ওয়ের্স্টান ড্রেস। মেকাপটা এমনভাবে নিতে যা আপনাকে মানায়। বেশি মেকাপ যেন না হয় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। সব বয়সি দর্শক আপনাকে দেখবে সে বিষয়টিও লক্ষ্য রাখতে হবে।

ইন্টারভিউ: সংবাদ উপস্থাপনার জন্য সিভিটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিভাবে বায়োডাটা-টা তৈরি করবেন? ছবি তোলার ক্ষেত্রে ফোর-আর ছবি তুলতে হবে। মনে রাখতে হবে যে টেলিভিশন চ্যানেলে সিভিটা দিতে চান ,সে চ্যানেলের সংবাদ-প্রোগাম কিছু দিন দেখতে হবে। কে কে সে চ্যানেলে নিউজ পড়েন। ছেলে উপস্থাপকের পোশাক কেমন, নারী উপস্থাপকদের পোশাক কেমন তা জানা জরুরি। ছবিতে আপনাকে কেমন লাগছে, স্কিনে কেমন লাগবে তা বোঝা যাবে আপনার দেয়া ছবি থেকে।

আপনার অডিশন ভালো হলে ৭০ ভাগ এগিয়ে যাবেন জব পাওয়ার ক্ষেত্রে। তাই নিজেকে সুন্দর ভাবে তৈরি করুন। সমালোচনায় মন খারাপ করা থেকে বিরত থাকাটা ভালো। সবাই ভালো বলবে না, সবাই মন্দও বলবে না।

পেশা: রেডিও-টেলিভিশনে সংবাদ পাঠকে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে নেওয়ার চিন্তা যাদের, তারা ইচ্ছা করলেই এ পেশায় ভালো করতে পারবেন। কারণ ইচ্ছা-স্বপ্ন একজন মানুষকে তার ক্যারিয়ারে সফল করে।এই পেশাটি খুবই প্রতিযোগিতামূলক। তাই নিজেকে যোগ্য করার মধ্য দিয়েই পেশাতে আসতে হয় এবং উপস্থাপক হিসেবে সুনাম কুড়ানো যায়। কেউ চাইলে এই পেশা পূর্ণকালীন করতে পারেন। কেউবা খণ্ডকালীন।

কাজের সুযোগ: বাংলাদেশ টেলিভিশন, বেতার তো আছেই, সেই সঙ্গে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে রয়েছে কাজের ভালো সুযোগ। বর্তমানে দেশে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের সংখ্যা ৪৪ ও রেডিও ১০০টির কিছু কম। সব জায়গাতেই রয়েছে কাজের সুযোগ। এই পেশায় থাকে অনেক দায়িত্ব। কথাবার্তা, আচার-আচরণ হতে হবে-বিনয়ী। সেই সাথে প্রচুর বই পড়ে জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করতে হবে। সময়ের সাথে বদলাতে হবে নিজেকে। হতে হবে আধুনিক।

আয়-রোজগার: সংবাদ উপস্থপাকদের বেতন নিয়ে নানা গুজব রয়েছে বাজারে। শুরুতেই লোভনীয় বেতন নাও পেতে পারেন। চ্যানেল বুঝে মাসে ১৫ থেকে ২৫ হাজার টাকা বেতন হতে পারে। তবে দেশীয় চ্যানেল থেকে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে বেতন বেশি। শখের পেশা হলেও যদি আপনি দক্ষতায় নিজেকে ছাড়িয়ে যান, তাহলে এই পেশায় উপার্জনও ভালো। খুব লোভনীয় না হলেও আনন্দের সঙ্গে এই কাজ করে মনের মতো অর্থ উপার্জন করতে পারবেন খুব সহজেই।

সমস্যা: নারীদের জন্য সব জবই পেশায় চ্যালেঞ্জ। তবে সংবাদ উপস্থাপনা ক্যারিয়ার অনেক বেশি চ্যালেঞ্জ। কারণ নিউজ দিনে বা রাতে পড়তে হতে পারে। তা পরিবার মেনে নিবে কিনা, বা মিডিয়ায় ক্যারিয়ার? শ্বশুর বাড়ীর লোকজন মেনে নিবে কিনা? খবর পড়া শেষ করতে কখনো কখনো অনেক রাত হতে পারে। আবার ভোরেও সংবাদ পড়া থাকতে পারে। বাসার সবার কালো মুখ দেখতে হতে পারে। নানা প্রশ্নের জবাব দিতে হতে পারে। মেয়েদের নিরাপত্তার বিষয়টা সব সময় ভাবে পরিবার। তাই পরিবারের অনুমতি নিয়ে এই ক্যারিয়ারে আসাটা হলো উত্তম কাজ।

লেখক: এস এম ফয়েজ, সিনিয়র রিপোর্টার, বাংলাভিশন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ