বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৬:৪২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
যুক্তরাষ্ট্রেকে হারিয়ে সুপার এইটে ভারত বাংলাদেশের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা তুলে নি‌ল ওমান তিস্তা মহাপরিকল্পনার বর্তমান পরিস্থিতি জানালেন প্রধানমন্ত্রী ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি-রাজনীতি ধ্বংস করেছে সরকার : মির্জা ফখরুল বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ কুয়েতে শ্রমিক আবাসন ভবনে আগুন, নিহত ৪১ এমপি আনার হত্যার তদন্ত সঠিক পথেই এগুচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ইউনূসকে বিচারের নামে হয়রানি করা হচ্ছে: ব্যারিস্টার খোকন বিচার প্রক্রিয়া সম্পর্কে ড. ইউনূসের বক্তব্য অসত্য: আইনমন্ত্রী আদালতে খাঁচার ভেতর দাঁড়িয়ে থাকা অপমানজনক: ড. ইউনূস মূল্যস্ফীতির হার সাড়ে ৬ শতাংশে নামানো অবাস্তব: সিপিডি বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে বিমান বাহিনীর প্রধানের শ্রদ্ধা পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি অভিযানে ৬ ফিলিস্তিনি নিহত সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশের তালিকায় তৃতীয় বাংলাদেশ

পাকিস্তানি মুদ্রার বেহাল দশা; ১ ডলার সমান ২০০ রুপি

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : মে ২০, ২০২২

ইতিহাসে সর্বনিম্ন পতনে নেমেছে পাকিস্তানি রুপি। দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার দিনের শুরুতে ডলারের বিপরীতে রুপির মান ছিল ১৯৮ দশমিক ৩৯; কিন্তু মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এই মান ২০০ ছাড়িয়ে যায়। শুক্রবার থেকে ১ ডলার সমান দাঁড়িয়েছে ২০০ রুপি।

১৯৪৭ সালে স্বাধীনতা লাভের পর পাকিস্তান গত ৭৫ বছরের ইতিহাসে নিজেদের মুদ্রার এই পরিমাণ পতন দেখেনি। যদিও বিশ্বব্যাপীও মুদ্রাস্ফীতি হয়েছে এবং চলছে। কিন্তু পাকিস্তানে এই হাওয়াটা একটিু বেশিই লাগলো বলে মনে হচ্ছে।

এদিকে চলমান অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলায় ৬শ’ কোটি ডলারের তহবিলের জন্য আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছে তদবির করছে পাকিস্তানের সরকার। এমন সময় দেশটিতে মুদ্রার এই দরপতন ঘটল। তহবিল পেয়ে গেলে তার কতটুকু সুফল পাবে তা বলা যাচ্ছে না।

পাকিস্তানি গণমাধ্যম জিও নিউজ বলছে, রুপির দরপতনের মধ্যে পাকিস্তানের প্রধামন্ত্রী শেহবাজ শরিফ শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন। বৈঠকে তিনি দেশের বর্তমান পণ্য আমদানি-রফতানির হালনাগাদ পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান। পাশাপাশি, বিলাসবহুল ও অতি জরুরি নয়— এমন পণ্য আমদানির বিষয়ে সরকার যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল, সেটির বাস্তবায়ন সম্পর্কিত প্রতিবেদনও তলব করেন।

২০১৮ সাল থেকেই অর্থনৈতিক সংকট চলছে পাকিস্তানে। করোনা মহামারিতে আরও তীব্র হয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকে মাত্র দেড় মাসের আমদানি ব্যয় মেটানোর মতো ডলার মজুত আছে।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ