বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৬:১২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
যুক্তরাষ্ট্রেকে হারিয়ে সুপার এইটে ভারত বাংলাদেশের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা তুলে নি‌ল ওমান তিস্তা মহাপরিকল্পনার বর্তমান পরিস্থিতি জানালেন প্রধানমন্ত্রী ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি-রাজনীতি ধ্বংস করেছে সরকার : মির্জা ফখরুল বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ কুয়েতে শ্রমিক আবাসন ভবনে আগুন, নিহত ৪১ এমপি আনার হত্যার তদন্ত সঠিক পথেই এগুচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ইউনূসকে বিচারের নামে হয়রানি করা হচ্ছে: ব্যারিস্টার খোকন বিচার প্রক্রিয়া সম্পর্কে ড. ইউনূসের বক্তব্য অসত্য: আইনমন্ত্রী আদালতে খাঁচার ভেতর দাঁড়িয়ে থাকা অপমানজনক: ড. ইউনূস মূল্যস্ফীতির হার সাড়ে ৬ শতাংশে নামানো অবাস্তব: সিপিডি বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে বিমান বাহিনীর প্রধানের শ্রদ্ধা পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি অভিযানে ৬ ফিলিস্তিনি নিহত সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশের তালিকায় তৃতীয় বাংলাদেশ

প্রস্তাবিত বাজেট দুর্নীতিবাজদের জন্য- বিএনপি

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুন ১১, ২০২২
প্রস্তাবিত বাজেট দুর্নীতিবাজদের জন্য- বিএনপি

প্রস্তাবিত বাজেটকে বাস্তবতা বিবর্জিত বলে উল্লে­খ করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, জনগণ নয়, এই বাজেট দুর্নীতিবাজদের জন্য। আজ (শনিবার) বিকালে রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন তিনি। ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে বিএনপির আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

এসময় দলটির মহাসচিব বলেন, ‘প্রস্তাবিত বাজেট জনবান্ধব নয়। একটা বিশেষ শ্রেণীর মানুষকে সুবিধা দেয়ার বাজেট। যা কেবলমাত্র সরকারের আশীর্বাদপুষ্টদের জন্য করা হয়েছে’। এই বাজেট প্রকৃতপক্ষে দুর্নীতির মাধ্যমে বিদেশে পাচার হয়ে যাওয়া বিপুল অঙ্কের টাকা বৈধ করার ম্যাজিক বক্স। এতে অর্থপাচার সংক্রান্ত মামলাগুলোর ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়বে’।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাজেট নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানানোর কিছু নেই। এটা কোনও অর্থেই সাধারণ জনগণের বাজেট নয়। এটা ডলার পাচারকারী ও অর্থ লুটেরাদের বাজেট। তিনি আরও বলেন, চাল, ডাল, তেল, লবণ, চিনি ও গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানির মূল্য হ্রাসের কোনও কার্যকরী কৌশল না নিয়েই শুধু নিজেদের বিত্ত-বৈভব বাড়াতে এ বাজেট প্রণীত হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, নিয়মে যারা সৎ ভাবে ব্যবসা করছেন, তারা কর দিতে নিরুৎসাহিত হবেন। এর আগেও বাজেটে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। পাচার হওয়া টাকা দেশে আনার বৈধতা দিলে যারা নিয়মিত কর দেন, তারা হতাশ হবেন। এতে পাচারের প্রবণতা বাড়বে’।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ