বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৪৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ডের উভয়েরই লক্ষ্য সিরিজে এগিয়ে যাওয়া মিয়ানমার থেকে ফিরলেন ১৭৩ বাংলাদেশি আপিল বিভাগে ৩ বিচারপতি নিয়োগ মন্ত্রী-এমপির স্বজনরা প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে ব্যবস্থা: কাদের ফিলিপাইনে তাপমাত্রা ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস উত্তর কোরীয় প্রতিনিধি দলের ইরান সফর খালেদা জিয়ার গ্যাটকো মামলায় চার্জশুনানি ২৫ জুন অফশোর ব্যাংকিংয়ে সুদের ওপর কর প্রত্যাহার রানা প্লাজায় নিহতদের স্মরণ দেশের হজ ব্যবস্থাপনা বিশ্বের মধ্যে স্মার্ট হবে: ধর্মমন্ত্রী থাইল্যান্ডে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী তাপদাহের মধ্যে গ্রামে ১০৪৯ মেগাওয়াট লোডশেডিং ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিলো জ্যামাইকা সুইজারল্যান্ডে জব্দ রয়েছে রাশিয়ার ১ হাজার ৪শ’ কোটি ডলার জিবুতি উপকূলে অভিবাসীবাহী নৌকাডুবিতে নিহত ৩৩

‘ফজলি আম’ রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ দুই জেলারই

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : মে ২৪, ২০২২

বাংলাদেশের অনেক স্থানেই ফজলি আম হয়ে থাকে। তবে রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ- এই দুইটি জেলায় সবচেয়ে বেশি ফজলি আম উৎপাদিত হয়। ‘ফজলি আম রাজশাহীর, নাকি চাঁপাইনবাবগঞ্জের এ নিয়েই চলছিল রশি টানাটানি। অস্তিত্ব পরীক্ষায় নেওয়া হয়েছিল ডিএনএ নমুনাও। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এই আমটি নিজস্ব পণ্য হিসেবে যৌথভাবে জিআই সনদ পেল উভয় জেলাই।

রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্র ফজলি আমের জিআই স্বত্ত্ব দাবি করার পর, পাল্টা দাবি জানায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

মঙ্গলবার (২৪ মে) এ নিয়ে ঢাকায় শুনানি হয়। শুনানি শেষে পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তরের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত সচিব) যনেন্দ্রনাথ সরকার রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমকে যৌথভাবে জিআই পণ্য হিসেবে আদেশ দেন।

রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আলীম উদ্দিন জানান, তিনি রাজশাহীর পক্ষে শুনানিতে অংশ নিয়েছিলেন। সেখানে তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরেন।

আর চাঁপাইনবাবগঞ্জের পক্ষে জাহাঙ্গীর সেলিম ও মুনজের আলমসহ ৬ জন অংশ নেন। তারাও চাঁপাইনবাবগঞ্জের পক্ষে তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরেন।

প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে চলা শুনানি শেষে বিকেলে আদেশ দেওয়া হয়। তাতে যৌথভাবে রাজশাহীও চাঁপাইনবাবগঞ্জকে ফজলি আমের জন্য জিআই সনদের স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আলীম উদ্দিন বলেন, এখন আদেশের বিরুদ্ধে কোনো পক্ষ সংক্ষুব্ধ হলে আদালতে যেতে পারবেন। রাজশাহীর জন্য কী করা হবে, সেটি পরবর্তীতে ভেবে তারা সিদ্ধান্ত নেবেন। আপাতত রায় ঘোষিত আদেশই চূড়ান্ত।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ