শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
উত্তর কোরিয়ার ওপর তিন দেশের নিষেধাজ্ঞা ঘানাকে হারিয়েও বাদ উরুগুয়ে পর্তুগালও হারলো, ১২ বছর পর নকআউটে কোরিয়া জন্ম‌নিবন্ধন, এনআইডি ও পাস‌পোর্টে হবে একই নম্বর আরো ১২০ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি চট্টগ্রামে ১০ লাখ লোকের সমাবেশ হবে- হানিফ আফগানিস্তানে ‘ভয়েজ অব আমেরিকা’ নিষিদ্ধ শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নে রোডম্যাপ ঘোষণার দাবি ‘খালেদা জিয়া জনসভায় গেলে কারাগারে পাঠাতে বাধ্য হবে সরকার’ ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে অধিনায়ক লিটন দাস ব্রাজিলে আকস্মিক বন্যা, পানিবন্দি হাজারো মানুষ অর্থনৈতিক সঙ্কটে সিএনএন থেকে চাকরি গেল শতাধিক কর্মীর বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর নিউইয়র্ক-সিঙ্গাপুর অবসর নিয়ে ফেললেন মুলার? বিএনপি ফের আগুন সন্ত্রাসের ষড়যন্ত্র করছে- কাদের

বাংলাদেশের বিজয়লগ্ন উদযাপনে সঙ্গী হলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : ডিসেম্বর ১৬, ২০২১

 

রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের কেন্দ্রীয় আয়োজনে সঙ্গী হয়েছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ।
জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় বৃহস্পতিবার বিকালে ’মহাবিজয়ের মহানায়ক’ শিরোনামে এই অনুষ্ঠান শুরু হয়। তার আগে সেখান থেকেই জাতিকে মুজিব বর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর শপথ পড়ান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ভারতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সঙ্গে ছিলেন বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী।

অতিথিরা অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছালে পরিবেশন করা হয় জাতীয় সংগীত। এরপর ধর্মগ্রন্থগুলো থেকে পাঠ করা হয়।
আলোচনা পর্বে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সম্মাননীয় অতিথির হিসাবে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেবেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ।

শুভেচ্ছা বক্তব্য দেবেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং স্বাগত বক্তব্য দেবেন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী।

আলোচনা শেষে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ রেহানা সম্মাননীয় অতিথির হাতে তুলে দেবেন ‘মুজিব চিরন্তন’ শ্রদ্ধা স্মারক।

এরপর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বাংলা ও ইংরেজিতে প্রকাশিত দুটি স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হবে।

এর আগে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ছোট বোন শেখ রেহানাকে নিয়ে দক্ষিণ প্লাজার অনুষ্ঠানস্থলে এসে উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তাদের আগমনের পর পরিবেশন করা হয় জাতীয় সংগীত। এরপর বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার শপথ করান প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা।

সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার নিয়ে জাতীয় পতাকা হাতে আটটি বিভাগীয় শহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সর্বস্তরের মানুষ এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়।
স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র, সাংস্কৃতিক সংগঠন ’সুরের ধারা ও হাল আমলের শিল্পীদের পরিবেশনায় ‘সাড়ে সাত কোটি মানুষের আরেকটি নাম মুজিবর’ গানের মধ্য দিয়ে শপথ অনুষ্ঠান শেষ হয়।

সূচি অনুযায়ী, আলোচনা পর্ব শেষে থাকছে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্তর শিল্পীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। চলবে রাত ৮টায় পর্যন্ত।

দুদিনের আয়োজন ঘিরে লাল-সবুজের থিমে বর্ণিলভাবে সাজানো হয়েছে জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজা। করা হয়েছে আলোকসজ্জা।

সংসদ ভবনকে পশ্চাদপটে রেখে মঞ্চ সাজানো হয়েছে। সংসদ ভবনে ফুটে উঠেছে মুজিব শতবর্ষের লোগো এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর লোগো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ