বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:২২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
জুলাইয়ে ব্রাজিল সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী অন্য দেশের লেন্স দিয়ে বাংলাদেশকে দেখি না: মার্কিন কর্মকর্তা একদিন না যেতেই ফের কমল স্বর্ণের দাম দেশকে পরিকল্পিতভাবে মরুকরণ করা হচ্ছে : মির্জা আব্বাস মন্ত্রী-এমপির আত্মীয়দের কাছে জিম্মি স্থানীয় জনগণ: রিজভী এক ব্যক্তির এক কথায় দল পরিচালিত হবে না: রওশন এরশাদ বিএনপি যে কোনো উপায়ে ক্ষমতায় আসতে মরিয়া: কাদের রোববার খুলছে স্কুল-কলেজ, মাউশির প্রজ্ঞাপন জারি বঙ্গোপসাগরে কার্গো জাহাজ ডুবি, ১১ জন উদ্ধার, নিখোঁজ ১ তীব্র তাপপ্রবাহে থাইল্যান্ডে ৩০ মৃত্যু, সতর্কতা জারি উপজেলা নির্বাচনে ব্যর্থ হলে গণতন্ত্র ক্ষুণ্ন হবে: সিইসি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চাকরি ছেড়ে দেওয়ার প্রবণতা বাড়ছে মিয়ানমার সেনাসহ ২৮৮ জনকে ফেরত পাঠাল বিজিবি যুদ্ধ কখনও কোনো সমাধান দিতে পারে না: প্রধানমন্ত্রী শপথ নিলেন নবনিযুক্ত আপিল বিভাগের তিন বিচারপতি

মঙ্গলে নাসার ইনসাইট ল্যান্ডারের কার্যকালের সমাপ্তি

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : মে ১৮, ২০২২

প্রায় চার বছর ধরে মঙ্গলের মাটিতে এর গঠন প্রকৃতি নিয়ে অনুসন্ধান শেষে নাসার ইনসাইট ল্যান্ডার চলতি গ্রীষ্মে অবসর নিতে যাচ্ছে। ল্যান্ডারের সৌর প্যানেলে মঙ্গলের ধুলোয় ঢেকে যাওয়ায় এর শক্তি হ্রাস পাচ্ছে।

২০১৮ সালের ৫ মে ইনসাইট ল্যান্ডার মঙ্গলে যাত্রা করে এবং ২৬ নেেভম্বর এটি মঙ্গলে অবতরণ করে। এটির আনুষ্ঠানিক মেয়াদ গত ১৮ মে শেষ হলেও এটি এখনো সক্রিয় আছে। সৌর প্যানেল ধূলোয় ঢেকে যাওয়ার শক্তি ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। পাওয়ার সংরক্ষণ ব্যাটারি ও নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ছে।

যদিও এই ল্যান্ডার বিশ্বের বিজ্ঞানীদের জন্য বিপুল ডাটা সংগ্রহ করে পাঠিয়েছে, বহু বছর ধরে এই তথ্যের ওপর গবেষণা চলবে। এই প্রোবের পাঠানো তথ্য গ্রহের গঠন প্রকৃতি বুঝতে সহায়ক হবে। মঙ্গলবার নাসা ইনসাইট ল্যান্ডারের এই আসন্ন সমাপ্তির কথা জানায়।

ফ্রান্সের তৈরি আলট্রা-সেনসেটিভ সিসমোমিটারে সজ্জিত এই ইনসাইট ল্যান্ডার এ পর্যন্ত মঙ্গলের ভূপৃষ্ঠে ১,৩০০ বেশী ভূমিকম্প রেকর্ড করেছে। এর মধ্যে গত ৪ মে ৫ মাত্রার ভূমিকম্প রেকর্ড করেছে। তবে জুলাই নাগাদ সিসমোমিটার বন্ধ হয়ে যাবে। ল্যান্ডারটির শক্তিস্তর এখন দিনে একবার টেক করা হবে এবং কিছু পরীক্ষা করা হবে। ছবি এখনো পাওয়া যেতে পারে। এর পর ২০২২ সালের শেষ নাগাদ মিশন সম্পূর্ণভাবে শেষ হবে।

ল্যন্ডারটির দ’ুটি সোলার প্যানেল রয়েছে, প্রতিটি ২.২ মিটার (প্রায় ৭ ফুট প্রশস্ত)। প্রায় চার বছর ধরে মঙ্গলের মাটিতে এই সোলার প্যানেল ধূলোয় ঢেকে গেছে। ইনসাইট এখন তার শক্তির ১০ ভাগের এক ভাগ মাত্র ব্যবহার করছে। শীঘ্রই এর ব্যাটারি নিঃশেষিত হয়ে যাবে।

মঙ্গলে ল্যান্ডারে ধূলোর আস্তরণ জমা হওয়া সম্পর্কে নাসার বিজ্ঞানীদের ধারণা ছিল। রোবোটিক বাহু দিয়ে অনাকাক্সিক্ষতভাবে সৌর প্যানেলের ধূলো সরানোর কারণে ল্যান্ডারটি নতুন করে এক বছরের জন্য আয়ু ফিরে পায়, ছয়বার এই ধূলো পরিস্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলের মাটিতে বর্তমানে চারটি মিশন রয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রিজার্ভেন্স ও কিউরিসিটি। চীনের ঝুরঙ এবং নাসার ইনসাইট ল্যান্ডার। সবগুলোই ২০১৮ সাল থেকে মিশনে রয়েছে। ইনসাইট ল্যান্ডার মঙ্গলের গঠনের ভূস্তর সম্পর্কে আরো নতুন তথ্য জানার সুযোগ করে দিয়েছে যা আগের অনেক ধারণা পাল্টে দিয়েছে।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ