শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৭:৪২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কোটাবিরোধীদের ভাঙচুর-হামলার জেরে পুলিশের মামলা দায়ের ‘ব্যাংকিং খাত এখন দুরবস্থার মধ্যে রয়েছে’ ডিসেম্বরেও উৎপাদনে যাচ্ছে না পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে দিল্লি, মুম্বাইসহ বেশ কিছু রাজ্য গাজার মানবিক অঞ্চলে বিমান হামলা, নিহত ৭১ গাজার ৭০ হাজারের বেশি মানুষ হেপাটাইটিসে আক্রান্ত নেপালে ১৬ বছরে ১৪ বার সরকার বদল? যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বকাপ আয়োজন করে কোটি টাকা খুইয়েছে আইসিসি ‘পদক নয়, নিজেদের উন্নতি করতে অলিম্পিকে যাচ্ছে বাংলাদেশ’ সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার : শিক্ষার্থীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা কোটা আন্দোলনে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি ভর করেছে: ওবায়দুল কাদের দেশে বদলে যাচ্ছে বন্যার ধরন গণতন্ত্রের জন্যও শিক্ষার্থীদের লড়াই করার আহ্বান আমির খসরুর সরকার পতনের আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে: মান্না

রোহিঙ্গারা অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে: প্রধানমন্ত্রী

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : আগস্ট ২৫, ২০২২
রোহিঙ্গারা অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কিছু রোহিঙ্গা ইতিমধ্যেই মানব পাচার ও মাদকদ্রব্যের অপব্যবহারসহ অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত হয়েছে। তারা এই অঞ্চলের পরিবেশও ধ্বংস করছে। তিনি বলেন, মিয়ানমারের উচিত আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে রাখাইন রাজ্যে কাজ করার অনুমতি দেওয়া যাতে তারা জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী প্রত্যাবাসনের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫শে আগস্ট) গণভবনে জাতিসংঘ মহাসচিবের মিয়ানমার বিষয়ক বিশেষ দূত নোয়েলিন হেইজার সৌজন্য সাক্ষাতে গেলে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমরা মিয়ানমারের সাথে এটি (প্রত্যাবাসন) নিয়ে আলোচনাও করেছি। কিন্তু, এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া আসেনি। আমরা এর সমাধান করতে চাই। আমরা কতদিন এই বিপুল সংখ্যক লোককে আতিথ্য দিতে পারি?”

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তির কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৭ সালে চুক্তি স্বাক্ষরের পর প্রায় ৬২,০০০ শরণার্থী ভারত থেকে দেশে ফিরেছিল।

এসময়, কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের কথা তুলে ধরে জাতিসংঘের বিশেষ দূত নোয়েলিন হেইজার বলেন, এখন মিয়ানমারে তাদের মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করার উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করা অপরিহার্য।জাতিসংঘের সংস্থা ও এনজিওসহ সবাই শরণার্থী শিবিরে রোহিঙ্গাদের জন্য কাজ করছে।

রোহিঙ্গা ব্যবস্থাপনার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসা করে তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবেলায় বাংলাদেশের অনেক সমর্থন প্রয়োজন।

নোয়েলিন হেইজার মিয়ানমার সফরও করেছেন এবং রোহিঙ্গা সঙ্কটের সমাধান খুঁজতে দেশটির সামরিক সরকারকে বলেছেন।তিনি আসিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে রোহিঙ্গা সংকটকে একটি আলোচনার বিষয় করার পাশাপাশি রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আসিয়ান-বাংলাদেশ উদ্যোগের ওপর জোর দেন।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ