শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৮:০০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
রোববার যে সময়ে আঘাত হানবে ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’ গ্রুপ ‘সি’: চমকে দিতে চায় উগান্ডা-পাপুয়া নিউগিনি এফএ কাপের ফাইনালে ম্যানচেস্টার ডার্বি উপকূলীয় এলাকায় লঞ্চ চলাচল বন্ধের নির্দেশ আনারের মাংসের ‘কিমা’ বানিয়ে কমোডে ফ্ল্যাশ করে খুনীরা আনারের মরদেহের পাশে বসেই খাবার খান হত্যাকারীরা বিশ্বজুড়ে গড় আয়ু কমেছে প্রায় ২ বছর : ডব্লিউএইচও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী আসছে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত টাকা পাচারের অভিযোগ দেরিতে আসায় ব্যবস্থা নিতে বেগ পেতে হচ্ছে: দুদক পাকিস্তানে মূল্যস্ফীতি বাড়ায় হিমশিম খাচ্ছে চাকরিজীবীরাও রাফা-গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৬০ এমপি আনারকে আগেও দুবার খুনের পরিকল্পনা হয়: ডিবি দুর্নীতি প্রশ্রয়দাতাদেরও বিচার করতে হবে : ১২ দলীয় জোট ‘বিদ্যুৎ-পানি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হোন’

সম্পদ ও ক্ষমতালোভীদের প্রতি পোপের নিন্দা

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : ডিসেম্বর ২৫, ২০২২
সম্পদ ও ক্ষমতালোভীদের প্রতি পোপের নিন্দা

‘ধন-সম্পদ ও ক্ষমতালোভী মানুষদের’ প্রতি নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্বের ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। তিনি বলেছেন, মানুষের সম্পদ ও ক্ষমতার ক্ষুধা তার পরিবার এবং প্রতিবেশীকেও গ্রাস করে। শনিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ভ্যাটিকান সিটির সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকায় উপাসকদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেওয়ার সময় পোপ ফ্রান্সিস এসব কথা বলেন। এদিন সন্ধ্যায় হুইল চেয়ারে করে চার্চে প্রবেশ করেন ৮৬ বছর বয়সী পোপ ফ্রান্সিস।

যুদ্ধের প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, ‘আমরা অনেক যুদ্ধ দেখেছি। আমি যুদ্ধ, দারিদ্র্য ও অবিচারের স্বীকার হওয়া শিশুদের সবার উপরে মনে করি।

‘আমরা কত যুদ্ধ দেখেছি! এসব যুদ্ধের প্রধান ভুক্তভোগী ছিল দুর্বলরাই। ভোগ আর ক্ষমতার লড়াইয়ের ঊর্ধ্বে গিয়ে যুদ্ধ ও দারিদ্রপীড়িত শিশুদের কথা মনে রাখার আহ্বান জানান খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় গুরু পোপ ফ্রান্সিস।

এর আগে, গত অক্টোবরে ইউক্রেনে ‘সহিংসতা ও মৃত্যুর চক্র’ বন্ধ করতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে সরাসরি আবেদন করেন পোপ ফ্রান্সিস। এমনকি ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে তিনি ‘রক্ত ও অশ্রুর নদীতে’ আচ্ছন্ন বলেও মন্তব্য করেছিলেন পোপ।

রোমান ক্যাথলিকদের এই নেতা বলেন, ‘সাম্প্রতিক দিনগুলোতে যে গুরুতর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে সেটি নিয়ে আমি গভীরভাবে দুঃখিত। এটি এমন পর্যায় পর্যন্ত পারমাণবিক (পরিস্থিতি তৈরির) ঝুঁকি বৃদ্ধি করে, যে তাতে শঙ্কা হয় তা বিশ্ব জুড়ে অনিয়ন্ত্রণযোগ্য ও বিপর্যয়কর পরিণতি ডেকে আনতে পারে। ’


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ