মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৫৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পঞ্চগড়ে মন্দিরগামীদের নিয়ে নৌকাডুবি, ২৪ জনের লাশ উদ্ধার, অনেকেই নিখোঁজ ডিএনসিসি মেয়র, ওয়াসা এমডিকে কারাগারে পাঠাতে চান নদী কমিশন চেয়ারম্যান নতুন মূল্য নির্ধারণ: পাম অয়েলে কমলো ১২ টাকা, চিনিতে ৬ টাকা বেনজীরের বিদায়, পুলিশের নতুন আইজি মামুন, র‌্যাবের ডিজি খুরশীদ ডলারে অতিরিক্ত মুনাফার অভিযোগ থেকে মুক্ত ছয় ব্যাংকের ট্রেজারি কর্তারা শত অনিয়মের আখড়া ছিল ই-ভ্যালি, ছিলনা আয়-ব্যয়ের হিসাব ১৬ কোটি মানুষের কাছে কৃতজ্ঞতা সাফজয়ী অধিনায়ক সাবিনার ল্যাব থাকলেও টেস্ট ছাড়াই হালাল সনদ দেয় ইসলামিক ফাউন্ডেশন ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ও সোনার বাংলা ক্যাপিটাল’র আমানত-দায় শেয়ারে রূপান্তর, চুক্তি সকল শক্তি দিয়েও নদী দখলকারীদের উচ্ছেদ করা যাচ্ছেনা: টুকু হংকংকে হারিয়ে সুপার ফোর নিশ্চিত করল ভারত প্রধানমন্ত্রীকে হত্যা ষড়যন্ত্রে সরকারি দলের লোকজন জড়িত হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া বিএনপি-জামাতের সম্পর্ক ভেতরে অটুট: কাদের দেশে জ্বালানি তেলের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে যমুনার তীব্র ভাঙন

সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা
আপডেট : আগস্ট ১২, ২০২২
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে যমুনার তীব্র ভাঙন

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে যমুনা নদীর ভাঙন শুরু হয়েছে। এরইমধ্যে নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে উপজেলার গালা ইউনিয়নের বহু বসত বাড়ি ও ফসলি জমি। হুমকিতে রয়েছে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধসহ আরও অনেক স্থাপনা। স্থানীয়দের অভিযোগ, ভাঙন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, ভাঙন কবলিত এলাকায় বালুর বস্তা ফেলা হচ্ছে।

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের গ্রামগুলোতে একের পর এক স্থাপনা যমুনা নদীতে বিলীন হয়েছে যাচ্ছে। গত এক সপ্তাহ নদী গর্ভে চলে গেছে এমন অর্ধশত স্থাপনা।

স্থানীয়রা জানান, গত দুই মাস ধরে গালা ইউনিয়নের বিনোটিয়া-মাজ্জান ও ফকিরপাড়াসহ আশপাশের ১২টি গ্রামে নদীর ভাঙন চলছে।এরই মধ্যে এসব গ্রামের ফসলি জমি ও বাড়ি ঘরসহ শতাধিক স্থাপনা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙনের হুমকির মুখে রয়েছে নদী রক্ষা বাঁধটিও। এলাকাবাসীর অভিযোগ, নদীতে চর জেগে ওঠায় পানি প্রবাহ ব্যাহত হচ্ছে, ফলে ভাঙন ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। ভাঙন রোধে দ্রুত নদী খনন করে পানি প্রবাহ স্বাভাবিক করার দাবি তাদের।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জানালেন, তাৎক্ষণিকভাবে ভাঙন রোধে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। এছাড়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটি রক্ষায় উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

নদী খননের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলে জানালেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের এই কর্মকর্তা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ