শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০২:১৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে যমুনার তীব্র ভাঙন জিম্বাবুয়ে সফরে ভারতের অধিনায়ক রাহুল বিশ্বজুড়ে ট্যালকম বেবি পাউডার বিক্রি বন্ধের ঘোষণা দিলো জনসন জ্বালানি তেলের প্রভাবে নিত্যপণ্যের বাজারে আগুন ক্ষমতাসীনদের দুর্নীতি আকাশচুম্বী : ফখরুল দলের ৮ বিভাগের নেতাদের ডেকেছেন শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আসছেন সোহেল তাজ! বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন তীব্র তাপদাহ ও দাবানলের সাথে লড়ছে ইউরোপ সিয়েরা লিওনে সংঘর্ষে ২৭ জনের প্রাণহানি প্রতিপক্ষের দুশ্চিন্তা বাড়াবে চীনের যে সামরিক হেলিকপ্টার এফবিআই কার্যালয়ে অস্ত্র নিয়ে ‘ট্রাম্প সমর্থক’, গুলি খেয়ে মৃত্যু চট্টগ্রামে বেসরকারি কন্টেইনার ডিপোতে চার্জবৃদ্ধি এশিয়া কাপের আগে বড় দুশ্চিন্তায় পাকিস্তান আয়ারল্যান্ডের কাছে আবারও হারলো আফগানিস্তান

৬৭ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি, গ্রামীণ ব্যাংকের বিরুদ্ধে ভ্যাট গোয়েন্দার মামলা

রিপোর্টারের নাম : / ২১৩ জন দেখেছেন
আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১
বৃত্তান্ত২৪ অনলাইনের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

বৃত্তান্ত প্রতিবেদক: ব্যাংকিং ও নন-ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ ব্যাংকের বিরুদ্ধে ৬৭ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকির দায়ে অভিযোগে মামলা করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর।

এছাড়া ভ্যাটযোগ্যসেবা দেওয়ার পরও প্রতিষ্ঠানটি এখনো ভ্যাট নিবন্ধণ গ্রহণ না করায় প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ভ্যাট গোয়েন্দারা আরেকটি মামলা করেছে বলে বৃহস্পতিবার নিশ্চিত করেছেন নিরীক্ষা, গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের (মূল্য সংযোজন কর) মহাপরিচালক ড. মইনুল খান।

তিনি জানান, ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নাজমুন নাহার কায়সারের নেতৃত্বে একটি দল প্রতিষ্ঠানটির ২০১১ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করে। তদন্তকালে গ্রামীণ ব্যাংকের এসব অনিয়ম বের হয়।

রাজধানীর মিরপুরে অবস্থিত গ্রামীণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠার পর থেকেই সেবার কোড এস ০৫৬-এর আওতায় ব্যাংকিং ও নন-ব্যাংকিংসেবা প্রদান করে আসছে। কিন্তু ভ্যাট আইন অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটি এখনো নিবন্ধন গ্রহণ করেনি।

মূল্য সংযোজন কর আইন ১৯৯১ এর ধারা ১৫ এর উপধারা (১) অনুযায়ী করযোগ্য পণ্যের সরবরাহকারী বা করযোগ্য সেবা প্রদানকারীকে বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে নিবন্ধন গ্রহণ করা বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

এনবিআরের এসআরও (নং ১৮৩/২০১২) অনুযায়ী, ‘টার্নওভার নির্বিশেষে ব্যাংক ও নন-ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানকে নিবন্ধন গ্রহণ করতে হবে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ