শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৬:১৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বকাপ আয়োজন করে কোটি টাকা খুইয়েছে আইসিসি ‘পদক নয়, নিজেদের উন্নতি করতে অলিম্পিকে যাচ্ছে বাংলাদেশ’ সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার : শিক্ষার্থীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা কোটা আন্দোলনে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি ভর করেছে: ওবায়দুল কাদের দেশে বদলে যাচ্ছে বন্যার ধরন গণতন্ত্রের জন্যও শিক্ষার্থীদের লড়াই করার আহ্বান আমির খসরুর সরকার পতনের আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে: মান্না কোটা সংস্কারের নামে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত স্বাধীনতাবিরোধীরা: আইনমন্ত্রী বাজারে সব পণ্যেই হাকিয়েছে সেঞ্চুরি নয়াদিল্লিতে বিমসটেক রিট্রিটে যোগ দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী গাজায় এখন যুদ্ধ শেষ করায় সময়: বাইডেন নেপালে ভূমি ধসে নদীতে ভেসে গেল বাস, নিখোঁজ ৬৩ শ্রীলঙ্কা দলের নেতৃত্ব ছাড়লেন হাসারাঙ্গা সিরাজগঞ্জে আবারও বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

ট্রাম্পের সফরে কত খরচ করে ভারত

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : আগস্ট ১৯, ২০২২
ট্রাম্পের সফরে কত খরচ করে ভারত

২০২০ সালে ভারত সফর করেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেশটিতে মাত্র ৩৬ ঘণ্টা অবস্থান করেন তিনি। এসময়ে তার পেছনে প্রায় ৩৮ লাখ রুপি খরচ ভারতীয় সরকার।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের সেই সফরের দুই বছর পর কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনকে এ হিসাব দিয়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মিশাল ভাথেনা নামে এক ব্যক্তির একটি আরটিআইয়ের (রাইট টু ইনফরমেশন অ্যাক্ট) জবাবে অবশেষে এ তথ্য দেয়া হলো।

ওই বছরের ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি আহমেদাবাদ, আগ্রা ও দিল্লি সফর করেন ট্রাম্প। সেসময় তার সঙ্গে ছিলেন স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প, মেয়ে ইভাঙ্কা, জামাতা জার্ড ক্রুশনার ও শীর্ষ কর্মকর্তারা।

২৪ ফেব্রুয়ারি মাত্র ৩ ঘণ্টা আহমেদাবাদে ছিলেন ট্রাম্প। সেখানে ২২ কিলোমিটার দীর্ঘ একটি রোড শো’তে যোগ দেন তিনি। সাবরমতী আশ্রমে মহাত্মা গান্ধীকে শ্রদ্ধা জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

পর নবনির্মিত মোতেরা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ‘নমস্তে ট্রাম্প’ সমাবেশে যোগ দেন তিনি। সেখানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও ছিলেন।

ওই দিনই আগ্রায় উড়ে যান ট্রাম্প। সেখানে সপরিবারে তাজমহল পরিদর্শন করেন তিনি। ২৫ ফেব্রুয়ারি দিল্লি পৌঁছেন বিশ্বের তৎকালীন ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্ট। যেখানে মোদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন।

২০২০ সালের ২৪ অক্টোবর ট্রাম্পের ওই সফরের খরচ জানতে চেয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আরটিআই করেন ভাথেনা। সফরে খাওয়া, থাকা, যাতায়াত, নিরাপত্তা, বিমান বাবদ সবকিছুর খরচ জানতে চাওয়া হয়।

তবে দীর্ঘদিন উত্তর পাননি ভাথেনা। অবশেষে কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনের দ্বারস্থ হন তিনি। শেষ পর্যন্ত ২০২২ সালের ৪ আগস্ট কমিশনকে এ তথ্য দেয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তারা জানায়, কোভিডের কারণে তথ্য দিতে দেরি হয়েছে।


এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ